জগদ্ধাত্রী সিরিয়াল আজকের পর্ব (১৯ জানুয়ারি, ২০২৪)

পর্বের সংক্ষেপ:

জগদ্ধাত্রী সিরিয়াল আজকের পর্ব কৌশিকীকে ডেকে নিয়ে ব্যাটাবিল জগদ্ধাত্রীর রুমে যায়। জগদ্ধাত্রী কৌশিকীকে জিজ্ঞেস করে, “তুমি কি জানো, কেন আমি তোমাকে এখানে ডেকেছি?”

কৌশিকী বলে, “আমি জানি না।”

জগদ্ধাত্রী বলে, “আমি তোমাকে বলতে চাই, Kakon কোথায় গেছে।”

কৌশিকী অবাক হয়ে বলে, “কেমন করে তুমি জানো?”

জগদ্ধাত্রী বলে, “আমি আমার শক্তি দিয়ে জানতে পেরেছি। Kakon তোমার বাড়ি থেকে চলে গেছে।”

কৌশিকী বলে, “কেন সে চলে গেছে?”

জগদ্ধাত্রী বলে, “কারণ সে তোমাকে ভালোবাসে। সে তোমার সাথে থাকতে চায়।”

কৌশিকী বলে, “কিন্তু সে জানে না যে আমি তাকে ভালোবাসি না।”

জগদ্ধাত্রী বলে, “সে জানে। সে সবই জানে।”

কৌশিকী বলে, “তাহলে সে কেন চলে গেছে?”

জগদ্ধাত্রী বলে, “কারণ সে তোমাকে তার ভালোবাসা প্রমাণ করতে চায়। সে তোমাকে দেখাতে চায় যে সে তোমার জন্য কতটা পাগল।”

কৌশিকী বলে, “আমি কি তাকে যেতে দেব?”

জগদ্ধাত্রী বলে, “সে তোমার ভালোবাসা চায়। তুমি কি তাকে সেই ভালোবাসা দিতে পারবে?”

কৌশিকী কিছুক্ষণ ভেবে বলে, “হ্যাঁ, আমি তাকে ভালোবাসা দিতে পারি।”

জগদ্ধাত্রী বলে, “তাহলে তুমি তাকে খুঁজে বের করো এবং তাকে তোমার ভালোবাসা দেখাও।”

কৌশিকী বলে, “আমি করব।”

কৌশিকী জগদ্ধাত্রীর কাছ থেকে বিদায় নিয়ে বেরিয়ে যায়। সে সিদ্ধান্ত নেয়, সে Kakon কে খুঁজে বের করবে এবং তাকে তার ভালোবাসা দেখাবে।

পর্বের শেষে:

কৌশিকী Kakon কে খুঁজে বের করতে বেরিয়ে যায়। সে জানে না Kakon কোথায় আছে, কিন্তু সে তাকে খুঁজে বের করার জন্য দৃঢ়প্রতিজ্ঞ।

পর্বের ট্রাইলার:

[youtube video id=”y34Xz8X329A”]

পর্বের মূল বিষয়:

  • Kakon কৌশিকীকে ভালোবাসে এবং তার সাথে থাকতে চায়।
  • কৌশিকী Kakon কে ভালোবাসে এবং তাকে তার ভালোবাসা প্রমাণ করতে চায়।
  • কৌশিকী Kakon কে খুঁজে বের করার জন্য বেরিয়ে যায়।

জগদ্ধাত্রী বাবুলকে আশ্বস্ত করেন যে তিনি দীপার জন্য প্রার্থনা করবেন। তিনি দীপাকে সুস্থ করে তোলার জন্য ভগবানের কাছে প্রার্থনা করেন।

পরদিন, জগদ্ধাত্রী দীপাকে দেখতে যান। দীপা জগদ্ধাত্রীকে দেখে খুশি হয়। জগদ্ধাত্রী দীপার সাথে কথা বলেন এবং তার মনের দুঃখ-কষ্ট দূর করার চেষ্টা করেন।

জগদ্ধাত্রীর সাথে কথা বলার পর দীপা কিছুটা ভালো বোধ করে। সে জগদ্ধাত্রীকে ধন্যবাদ জানায়।

পরবর্তীতে, জগদ্ধাত্রীর বাড়িতে আসেন বাবুলের মা। তিনি জগদ্ধাত্রীকে জানান, দীপা আরও ভালো বোধ করছে। সে এখন কথা বলতে পারছে এবং খাওয়া-দাওয়া করতে পারছে।

জগদ্ধাত্রী দীপার সুস্থতার জন্য খুশি হন। তিনি দীপা এবং তার পরিবারের জন্য শুভকামনা জানান।

এই পর্বে দেখা যায় যে জগদ্ধাত্রীর প্রার্থনার মাধ্যমে দীপা সুস্থ হয়ে ওঠে। জগদ্ধাত্রীর অলৌকিক ক্ষমতার কথা আরও একবার প্রমাণিত হয়।

এই পর্বের কিছু উল্লেখযোগ্য দৃশ্য হল:

  • বাবুল জগদ্ধাত্রীর কাছে দীপার জন্য প্রার্থনা করার অনুরোধ করেন।
  • জগদ্ধাত্রী দীপাকে দেখতে যান এবং তার সাথে কথা বলেন।
  • দীপা জগদ্ধাত্রীর সাথে কথা বলার পর কিছুটা ভালো বোধ করে।
  • বাবুলের মা জগদ্ধাত্রীকে জানান যে দীপা আরও ভালো বোধ করছে।

এই পর্বের মাধ্যমে জগদ্ধাত্রীর অলৌকিক ক্ষমতার আরও একটি প্রমাণ পাওয়া যায়। জগদ্ধাত্রীর প্রার্থনার মাধ্যমে দীপা সুস্থ হয়ে ওঠে। এটি दर्शায় যে জগদ্ধাত্রী একজন সত্যিকারের দেবী।

Rate this post

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *