নীম ফুলের মধু আজকের পর্ব (১৬ ডিসেম্বর ২০২৩)

পর্বের নাম: “অন্ধকারের শেষে আলো”

পর্বের সংক্ষিপ্তসার:

নীম ফুলের মধু আজকের পর্ব রুমকি এবং তার মা সুমিত্রা নীম ফুলের মধুর ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন। রুমকির স্বামী নীল তার ব্যবসায় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সে রুমকিকে তার ব্যবসা বন্ধ করার জন্য চাপ দিচ্ছে। রুমকি তার স্বামীর কথায় কর্ণপাত না করে তার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে, নীল রুমকিকে তার ব্যবসা বন্ধ করার জন্য নতুন নতুন কৌশল অবলম্বন করছে। সে রুমকির ব্যবসার বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছে। সে রুমকির ব্যবসার প্রতিযোগীদের সাথে যোগাযোগ করে তাদের রুমকির ব্যবসার ক্ষতি করার জন্য উৎসাহিত করছে।

রুমকি তার স্বামীর বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। সে তার ব্যবসাকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য দৃঢ়প্রতিজ্ঞ। সে তার মা সুমিত্রার সাথে মিলে তার স্বামীর বিরুদ্ধে লড়াই করছে।

পর্বের শেষে:

রুমকি এবং তার মা সুমিত্রা নীলকে তার অপকর্মের জন্য শাস্তি দেওয়ার জন্য একটি পরিকল্পনা করে। তারা নীলের বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছে এমন লোকদের খুঁজে বের করে। তারা সেই লোকদের সাথে যোগাযোগ করে তাদের নীলকে তার অপকর্মের কথা স্বীকার করতে বাধ্য করে।

রুমকি এবং তার মা সুমিত্রা নীলের বিরুদ্ধে একটি মামলা করে। আদালত নীলের বিরুদ্ধে রায় দেয়। নীলকে তার অপকর্মের জন্য জেল হয়।

রুমকি তার স্বামীর জেল থেকে মুক্তির পর তার ব্যবসা চালিয়ে যেতে থাকে। সে তার ব্যবসাকে আরও বড় করে তোলে। সে তার মা সুমিত্রার সাথে মিলে একটি সফল ব্যবসায়ী হয়ে ওঠে।

পর্বের শেষে রুমকি এবং তার মা সুমিত্রার একটি সংলাপ:


রুমকি: মা, আমরা শেষ পর্যন্ত নীলকে তার অপকর্মের জন্য শাস্তি দিতে পেরেছি।

সুমিত্রা: হ্যাঁ, আমার মেয়ে। আমরা আমাদের লক্ষ্য অর্জন করেছি। আমরা আমাদের ব্যবসাকে বাঁচিয়ে রাখতে পেরেছি।

রুমকি: মা, আমি তোমাকে অনেক ভালোবাসি। তুমি আমাকে সবসময় সাহায্য করেছ।

সুমিত্রা: আমিও তোমাকে অনেক ভালোবাসি, আমার মেয়ে। তুমি আমার সবচেয়ে প্রিয় সন্তান।


পর্বের শেষে দর্শকদের উদ্দেশ্যে একটি বাণী:

অন্ধকারের শেষে আলো আসে। রুমকি এবং তার মা সুমিত্রার গল্প আমাদের এই শিক্ষা দেয় যে, আমরা যদি কঠোর পরিশ্রম করি এবং আমাদের লক্ষ্য অর্জনের জন্য দৃঢ়প্রতিজ্ঞ থাকি, তাহলে আমরা যেকোনো বাধা অতিক্রম করতে পারি।

Rate this post

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *